কেমন হল গুগল পিক্সেল ৪?

অক্টোবরের ১৫ এ মেড বাই গুগল ২০১৯ ইভেন্টে গুগল তাদের সাম্প্রতিক উদ্ভাবনসমূহ জনসমক্ষে উন্মোচন করেছে। আর প্রতি বছরের মত এই বছরও এই অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ ছিল গুগল পিক্সেল ফোন লাইন আপের নতুন স্মার্টফোন। এই বছর মুক্তি পেল পিক্সেল ৪ এবং পিক্সেল ৪ এক্সএল। চলুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক কি কি থাকছে এই দুটি ফোনে।

ডিজাইন

ডিজাইনের ক্ষেত্রে গুগলের আলসেমিটা কারো ই তেমন পছন্দ না। বরাবরই গুগল তাদের ফোনগুলোর ডিজাইন সাধারণ রাখতে পছন্দ করে। তবে গুগলের এই ধরনের মিনিমালিস্টিক ডিজাইনের কদর বুঝেন, এমন মানুষেরও অভাব নেই। পিক্সেল ৪ এর পিছনে থাকছে বড় একটা ক্যামেরা বাম্প। পিক্সেল ৩ এর সেই কুখ্যাত নচ ডিসপ্লে থেকে এবার সরে এসেছে গুগল। গুগলের এক ডজন সেন্সর সমেত কিছুটা বড় বেজেল সহ ডিসপ্লে থাকছে এবারের পিক্সেল ৪ এ। ৩টি কালার ভ্যরিয়েন্টে এসেছে গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল ৪ এক্সএল।

ডিসপ্লে

পিক্সেল ৪ এ থাকছে ৫.৭ ইঞ্চি প্যানেল এবং এক্সএল ভার্সন এ থাকছে ৬.৩ ইঞ্চি ডিসপ্লে প্যানেল। গুগল এবার পিক্সেল ৪ এ যুক্ত করেছে ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেট সমৃদ্ধ ডিসপ্লে। তবে মজার ব্যাপার হল এই ডিসপ্লে রিফ্রেশ রেট অপটিমাইজড। অর্থাৎ প্রয়োজন অনুসারে ডিসপ্লে রিফ্রেশ রেট আপনাআপনি পরিবর্তন করবে পিক্সেল ৪,যা ব্যাটারি অনেকটাই সাশ্রয় করবে।

ক্যামেরা

পিক্সেল সিরিজের মূল আকর্ষণ এর হাই কোয়ালিটি ক্যামেরা। প্রাইমারি ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সহ গুগল পিক্সেল ৪ এর ব্যাকে এবার যুক্ত করা হয়েছে সেকেন্ডারি ১৬ মেগাপিক্সেল টেলিফটো ক্যামেরা। পিক্সেল ৪ এর ফ্রন্টে থাকছে ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। তবে থাকছেনা কোনো আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা।

সফটওয়্যার

৬জিবি র‍্যামে রান করবে গুগল পিক্সেল ৪ এবং পিক্সেল ৪ এক্সএল। পিক্সেল ৪ এ এবার ইন-বিল্ট থাকছে গুগল এসিটেন্ট, যার ফলে গুগল এসিস্টেন্ট আরো দ্রুত রেস্পন্স করবে। পিক্সেল ৪ এর ক্যামেরাতে লাইভ এইচডিআর কন্ট্রোল ফিচার যুক্ত করে, মোবাইল ফটোগ্রাফিকে অন্য ধাপে নিয়ে গিয়েছে গুগল।

এখন থেকে ছবি তোলার সময় ই লাইভ এক্সপোজার আর শেডো কন্ট্রোল করা যাবে। এর সাথে নাইট মোড ফিচার এ থাকছে এস্ট্রোফটোগ্রাফি সাপোর্ট, যা ব্যবহার করে রাতের আকাশের চমৎকার ছবি তোলা যাবে বলে দাবি গুগলের। এছাড়াও ভয়েস রেকর্ডার এপে লাইভ ট্রান্সক্রিপশন ফিচার থাকছে, যার মাধ্যমে ভয়েস রেকর্ডিং এর সাথে সাথে কি বলা হচ্ছে তা ও রিয়েলটাইমে টেক্সট হিসেবে সেভ হয়ে যাবে। অর্থাৎ রেকর্ডিং এ এখন থেকে কি বলা হয়েছে তা ও সার্চ করা যাবে।

মোশন সেন্সর

প্রজেক্ট সলির ব্র‍্যান্ড নেম মোশন সেন্সর হিসেবে প্রকাশ করেছে গুগল। পিক্সেল ৪ এর ফ্রন্ট বেজেলের মধ্যেই লুকিয়ে আছে গুগলের এই অন্যতম উল্লেখযোগ্য উদ্ভাবন মোশন সেন্সর। অনেকটা সময় ধরেই এই মোশন সেন্সর নিয়ে কাজ করছিল গুগল। মোশন সেন্সর এতটাই শক্তিশালী যে এটি ব্যবহারকারীর উপস্থিতি বুঝতে সক্ষম। অর্থাৎ ব্যবহারকারী যদি ফোন হাতে দিয়ে মুখের সামনে আনেন, তাহলেই আপনাআপনি এর লক খুলে যাবে। এই ব্যাপারটি এতই দ্রুত ঘটে যে ব্যবহারকারীগণ তাদের লকস্ক্রিন দেখতে পাবেন ই না। এই মোশন সেন্সর ব্যবহার করে হাতের ইশারায় নিয়ন্ত্রণ করা যাবে ফোনের মিউজিক প্লেবেক কিংবা ফোনের এলার্ম ও।

ব্যাটারি

ব্যাটারি নিয়ে কিছুটা হতাশ হলেও হতে পারেন ব্যবহারকারীগণ। মাত্র ২৮০০ মিলিএম্পিয়ার ব্যাটারি নিয়ে বাজারে এসেছে পিক্সেল ৪, যা কিছুটা হতাশাজনক। বর্তমান বাজারে যেকোনো দামের ফোনেই এর চেয়ে বেশি শক্তিশালী ব্যাটারি পাওয়া যায়। তবে গুগলের ভাষ্যমতে এই ছোট ক্যাপাসিটির ব্যাটারি নিয়েও সারাদিন ব্যকাপ দিতে পারবে গুগল পিক্সেল ৪। অবশ্য পিক্সেল ৪ এক্সএল ব্যবহারকারীরা ৩৭০০ মিলিএম্পিয়ার ব্যাটারি নিয়ে অনেকটাই স্বস্তিবোধ করবেন।

বাজার দর

এবার দামের বেলায় কিছুটা ছাড় দিয়েছে গুগল। গুগল পিক্সেল ৪ পাওয়া যাবে ৭৯৯ মার্কিন ডলারে। তবে পিক্সেল ৪ এক্সএল এর ১২৮ জিবি ভ্যারিয়েন্টের দাম ঘুরে ফিরে সেই ৯৯৯ ডলারেই এসে ঠেকবে।

[★★] আপনিও একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ! এখানে ক্লিক করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন।

ফেসবুকে যুক্ত হোন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য পেতে ইমেইলে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.