ফটোশপ করা ছবিসমূহ হাইড করছে ইন্সটাগ্রাম

ভুল তথ্য এবং ভুয়া খবরের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের একটি প্রয়াস হিসাবে সম্প্রতি একটি নতুন ফিচার যুক্ত করেছে ইন্সটাগ্রাম, যা মূলত ভূল তথ্য বা ভূয়া খবরযুক্ত ছবিগুলোকে ফ্ল্যাগ করবে।

শুনতে দারুণ একটি উদ্যোগ বলে মনে হলেও এটি নিয়ে দ্বিধাতে পড়েছেন অনেক ফটোগ্রাফার। অনেক ফটোগ্রাফাররা ভাবছেন যে প্রক্রিয়াটি অনেক জটিল হওয়ায় এটি পুরো সিস্টেম এ বিরুপ প্রভাব ফেলতে পারে।

সান ফ্রান্সিসকো এর ফটোগ্রাফার টবি হ্যারিম্যান কিছুদিন আগে তার ইন্সটাগ্রাম নিউজফিড চেক করছিলেন। সেখানে একটি পোস্টে প্রথমবারের মত “ফলস ইনফরমেশন” লেখা একটি পপ-আপ দেখতে পান তিনি।

যে পপ-আপ টি পোস্টটিকে হাইড করছিলো সেটিতে ক্লিক করার পর টবি দেখতে পেলেন যে ছবিটি আসলে একজন মানুষের। ছবিটিতে একজন মানুষকে রংধনু রং এর কিছু পর্বতের মাঝে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

ব্যাপারটি দেখে টবি বলেন, “দেখে মনে হচ্ছে ফেসবুক এবং ইন্সটাগ্রাম ভূয়া ছবি/ডিজিটাল আর্টগুলোকে চিন্হিত করবে।” 

ইনস্টাগ্রাম বলছে যে, প্রক্রিয়াটি তাদের কমিনিউটির ফিডব্যাক এবং প্রযুক্তির যৌথ ব্যবহারে থার্ড পার্টি ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফ্যাক্ট চেকার এর মধ্য দিয়ে ছবিসমূহকে স্ক্যান করে। যদি সিস্টেম অনুসারে কোনো ছবি ভূয়া বলে গণ্য করা হয়, তবে ব্যবহারকারীগণ ছবিটি দেখার আগে একটি ওয়ার্নিং পপ-আপ দেখতে পাবেন।

এছাড়াও “ভূয়া” ছবিসমূহ এক্সপ্লোর ট্যাব কিংবা হ্যাশট্যাগ পেজে দৃশ্যমান হবেনা।  ভবিষ্যতে পুনরায় আপলোডেও ফ্ল্যাগ করা ছবিসমূহ একই সমস্যার সম্মুখীন হবে। 

টবি আরো বলেন, “আমি দেখতে চাই আগামীতে প্রক্রিয়াটি কীভাবে কাজ করবে। সত্যি বনাম ফটোশপ করা ছবির মধ্যে এটি কতটুকু পার্থক্য খুজে বের করতে পারে, সেটাই দেখার বিষয়। ডিজিটাল আর্টগুলোকে আমি ভালোবাসি এবং চাইনা সেগুলা দেখতে একটি বাড়তি নিরাপত্তা স্তর পার করতে হোক।”

[★★] আপনিও একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ! এখানে ক্লিক করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন।

ফেসবুকে যুক্ত হোন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য পেতে ইমেইলে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

2 comments

  1. BanglaFeeds Reply

    শুধু ইন্সটাগ্রাম না, অন্যান্য সাইট গুলোও বিপাকে পড়বে কিছুদিন পর।
    কারন নেটে এখন কোনটা সত্য কোনটা মিথ্যা তা বের করা অনেক কঠিন হয়ে গেছে।
    যারা মিথ্যা ছড়াচ্ছে তারা প্লান করে আগেপিছু সাজিয়ে মিথ্যা ছড়াচ্ছে।
    তাছাড়া এখন ডিপ ফেক আসার কারনে তো ভিডিও পর্যন্ত সাজানো যাচ্ছে প্রোপাগান্ডার জন্য।
    আর ফেসবুক গুগল এর পক্ষে তো সব রিপোর্ট মানুষ দিয়ে যাচায় করা সম্ভব না।
    তবে পারলে সেটা আমাদের জন্য ভালোই।

    • Sazid Kabir Post authorReply

      আপনার মতামতের সাথে আমিও সম্পূর্ণ একমত। তবে আমরা সবাই মিলে যদি আদর্শ নেটিজেনের দায়িত্ব করি, তবে এর কিছুটা হলেও সমাধান হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.