ভালো মোবাইল ফোন চেনার ৫টি উপায়

যুগের ধারাবাহিকতায় আর টেকনোলজির সুবাদে আজকাল প্রায় সকলের হাতেই মোবাইল ফোন রয়েছে। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে, আর নিজেকে আপডেটেড রাখতে গেলে, মোবাইল ফোন থাকা অত্যাবশক। মোবাইল ফোন সম্পর্কে আমাদের পর্যাপ্ত ধারণা না থাকার কারণে মোবাইল ফোন কেনার আগে অন্য কারো শরণাপন্ন হতে হয়।

তবে আমাদের আজকের এই পোষ্টটি যদি আপনি মনোযোগ সহকারে পড়েন, বিশ্বাস রাখতে পারেন যে আপনি নিজে নিজেই একটি ভালো স্মার্টফোন কিনতে পারবেন। আশা করি আপনাকে আর অন্য কাউকে ডেকে নিয়ে কেনার প্রয়োজন পরবে না। আজকে আমরা আপনাদের মাঝে ভালো মোবাইল ফোন চেনার পাঁচটি সহজ উপায় নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি। এই পাঁচটি বিষয় বিবেচনা করে মোবাইল কিনলে আপনি ঠকবেন না আশা করি।

ভাল মোবাইল ফোন চেনার সহজ ৫টি উপায়ঃ

  • অপারেটিং সিস্টেম
  • স্টোরেজ
  • প্রসেসর
  • ক্যামেরা
  • ব্যাটারি

অপারেটিং সিস্টেম

আপনার স্মার্টফোনটি ঠিক কোন সিস্টেম দিয়ে অপারেট হবে সেটা নির্ধারণ করবে আপনার অপারেটিং সিস্টেম। অপারেটিং সিস্টেম মোবাইল ফোনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আপনার ফোনের ফাংশনালিটি কি হবে এবং কোন টাইপের অ্যাপ ইন্সটল করতে পারবেন তা নির্ধারণ করবে আপনার অপারেটিং সিস্টেম। বাজারে বেশ কয়েকটি অপারেটিং সিস্টেম থাকা সত্ত্বেও সিংহভাগ দখল করে আছে গুগলের তৈরি অ্যান্ড্রয়েড।

আপনার অপারেটিং সিস্টেম যতটা উর্ধতর অথবা আপডেটেড থাকবে, আপনি তত বেশি ফিচার পাবেন এবং বেশ কিছু নতুন নতুন ফিচার এক্সপেরিয়েন্স করতে পারবেন। অ্যাপল বা আইফোন ডিভাইস গুলোতে মূলত আই ও এস অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ব্যবহারকারীদের ইউজার এক্সপেরিয়েন্স এবং বিভিন্ন সুবিধার কথা বিবেচনা করে মূলত অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস এই দুটি অপারেটিং সিস্টেমকে টার্গেট করেই বিশ্বের বিভিন্ন ধরনের মোবাইল ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি মোবাইল ফোন তৈরি করে থাকে। তাই কেনার সময় এই দুটির যেকোন একটি কিনবেন আর খেয়াল রাখবেন যতটা সম্ভব আপডেটেবল রাখার চেষ্টা করবেন।

স্টোরেজ

স্মার্টফোন গুলোতে মূলত ২ ধরনের স্টোরেজ থাকে – প্রথমত র‍্যাম এবং দ্বিতীয়ত রম বা ইন্টারনাল স্টোরেজ। ইন্টারনাল স্টোরেজ আবার ফোন মেমোরি নামেও পরিচিত। এই দুই প্রকার স্টোরেজের মধ্যে র‍্যাম সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আপনি আপনার ফোনে কতগুলো অ্যাপ রান করাতে পারবেন র্যাম মূলত সেটা নির্ধারণ করে থাকে। সহজ বাংলায় বলতে গেলে আপনার ফোনের র‍্যাম যত বেশি হবে আপনি ফোনটি চালিয়ে তত বেশি মজা পাবেন। রম বা ইন্টারনাল স্টোরেজে মূলত আপনার ফোনের যাবতীয় ডাটা এবং অ্যাপ ডাটা গুলো সংগ্রহ করা থাকে।

আপনি যদি মোবাইল গেমার হয়ে থাকেন তাহলে র‍্যামের বিষয়টা পাশাপাশি প্রসেসর এর বিষয়টা আপনার মাথায় রাখতে হবে। কারণ আপনার ফোনের র‍্যাম যত বেশি হবে এবং প্রসেসর যতটা কম ন্যানোমিটারের হবে আপনি গেমসে তত বেশি মজা পাবেন।

প্রসেসর

মোবাইল বা স্মার্টফোন কতটা সাবলীলভাবে চলবে সেটা নির্ধারণ কর এর প্রসেসর। প্রসেসরকে একটি স্মার্টফোনের প্রাণকেন্দ্র বলা চলে। মার্কেটে বিভিন্ন ধরনের প্রসেসর বিদ্যমান বিভিন্ন ধরনের ভার্সন এর উপর বিবেচনা করে। প্রসেসর এর চিপসেট যত কম ন্যানোমিটারের হয় ততো ভাল। প্রসেসর যতটা শক্তিশালী হবে মোবাইল ফোনের ব্যবহার ইউজার ইন্টারফেস ততটাই সাবলীল এবং সুন্দর ভাবে পরিচালিত হবে।

ক্যামেরা

আজকাল সবাই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ছবি তুলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে থাকেন। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম সেলফি তুলতে সবচেয়ে বেশি পছন্দ করে। ক্যামেরার মেগাপিক্সেলে এবং লাইট ক্যাপচারের ক্ষমতা যত ভালো হবে সেই ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুললে তত বেশি আকর্ষণীয় হবে, পারফরম্যান্স ভাল হবে।

যদি কেউ গেম বেশি পছন্দ করে থাকে, তাহলে সেই ফোনের ক্যামেরা খুব একটা ভালো থাকার প্রয়োজন নেই। আপনি প্রসেসর, র‍্যাম এবং ব্যাটারির দিকটা বিবেচনায় রাখলেই হবে।

ব্যাটারি

মোবাইল ফোন ইউজারদের ক্ষেত্রে ব্যাটারি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। যে ফোনের ব্যাটারি সবচেয়ে বেশি আপনি সেই ফোনটি কেনার চেষ্টা করবেন। আপনি গেমার হলেও অথবা আপনি সাধারণ কাজে ব্যবহার করার ক্ষেত্রেও আপনি যতটা সম্ভব সবচেয়ে বেশি পাওয়ার যুক্ত ব্যাটারি ওয়ালা ফোন কিনতে চেষ্টা করবেন।

মোবাইল ফোনের দাম সম্পর্কে জানতে পারবেন www.bdstall.com থেকে।

[★★] আপনিও একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ! এখানে ক্লিক করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন।

ফেসবুকে যুক্ত হোন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য পেতে ইমেইলে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

আমাদের প্রশ্ন করুন!