চার্জটেক আনলো ১ লাখ মিলিএম্প ক্ষমতার পাওয়ারব্যাঙ্ক!

ডিজিটাল গ্যাজেটগুলো চার্জ দেয়ার জন্য চলার পথে পাওয়ারব্যাঙ্ক এর জুড়ি নেই। আর লম্বা ট্যুরে গেলে তো কথাই নেই। মোবাইল ফোন থেকে শুরু করে ল্যাপটপ, ক্যামেরা সহ সব গ্যাজেটই চার্জ দেয়া যায়। ৫০০০ থেকে ১০০০০ মিলিএম্প এর পাওয়ারব্যাঙ্ক আজকাল প্রায় সবার পকেটেই দেখা যায়। আমি অবশ্য ব্যাকপ্যাকের পকেটে আমার ২০০০০ মিলিএম্প এর পাওয়ারব্য্যাঙ্ক টা রাখতেই বেশি পছন্দ করি।

যাই হোক, যা বললাম সবই সাধারণ ব্যাপার। কিন্তু কেমন হবে যদি বলি চার্জটেক নামক কোম্পানি তাদের পোর্টফলিও তে যুক্ত করেছে নতুন এক পাওয়ারব্যাঙ্ক যার ক্যাপাসিটি এক লক্ষ চব্বিশ হাজার আটশত মিলিএম্পিয়ার যা প্রায় ৪৬২ ওয়াট আওয়ার এর সমতুল্য।

ক্যাপাসিটি যেহেতু এত বেশি তাই এর সাইজটাও পকেটে রাখার মতো হবে না সেটাই স্বাভাবিক। তবে ভ্রমণে কিংবা ক্যাম্পিং এ যাওয়ার সময় খুব সহজেই ব্যাগে কিংবা গাড়ির পিছনে গলিয়ে দিতে পারবেন। দেখতে এটা অনেকটা পুরনো আমলের টেপ রেকর্ডার কিংবা স্পিকার এর মতো।

এতে আছে,

  • ১ টি কুইক চার্জ ৩.০ পোর্ট
  • ২ টি ২.৪ এম্প এর ইউএসবি পোর্ট
  • ১ টি ৬০ ওয়াট এর ইউএসবি সি পোর্ট
  • ৩ টি ৯-১২ ভোল্টের ৫ এম্প ডিসি আউটপুট পোর্ট
  • ২ টি ১২০ ভোল্ট এর এসি আউটপুট যা ৩০০ ওয়াট পর্যন্ত লোড নিতে পারবে

অন্যান্য পাওয়ারব্যাঙ্ক শুধু ডিসি আউটপুট দিতে পারলেও এটা এসি আউটপুট ও প্রোভাইড করতে পারে। যার ফলে আইপিএস এর ন্যায় বাসার ফ্যান, লাইট চালাতেও কোন অসুবিধা হবে না। অন্যদিকে নরমাল সব ডিসি ও ইউএসবি পোর্ট থাকাতে আপনি আপনার সব স্মার্ট গ্যাজেটই চার্জ দিতে পারবেন।

আর হ্যাঁ, এটার সাথে একটি ফ্ল্যাশ লাইট আর ১০ ওয়াট এর ব্লুটুথ স্পিকারও জুড়ে দেয়া আছে। বলা যায় এডভেঞ্চার কিংবা ক্যাম্পিং প্রেমীদের জন্য পারফেক্ট একটি ডিভাইস। রাতের বেলা জঙ্গলে ক্যাম্পিং কিংবা বারবিকিউ পার্টিতে এটা থাকলে আর চিন্তা নেই।

এটি পাওয়া যাচ্ছে ৭০০ ডলারে, বাংলাদেশি টাকায় যা প্রায় ৬০০০০ টাকার মতো।

[★★] আপনিও একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ! এখানে ক্লিক করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন।

ফেসবুকে যুক্ত হোন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য পেতে ইমেইলে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

আমাদের প্রশ্ন করুন!