স্মার্টফোন বায়িং গাইডঃ ১০ হাজারের কম বাজেটে কোন ফোনটি ভালো হবে?

বর্তমান দেশের বাজারে এত এত স্মার্টফোনের ভিড়ে নিজের জন্য সঠিক স্মার্টফোনটি খুঁজে পাওয়া খুবই কঠিন। সেই সাথে প্রত্যেকটি কোম্পানিই একে অপরের সাথে প্রতিযোগিতা করছে। এর ফলে একই দামে বিভিন্ন ব্র্যান্ড এর বিভিন্ন স্মার্টফোন পাওয়া যাচ্ছে।

একই দামে কোনটি দিচ্ছে শক্তিশালী প্রসেসর, কোনটি দুর্দান্ত ক্যামেরা আবার অন্যটি হয়তো দীর্ঘ্যস্থায়ী ব্যাটারি। তাই স্মার্টফোন পছন্দ করে কেনার ব্যাপারটা নিজের চাহিদা কিংবা ব্যক্তিত্বের উপর নির্ভর করে।

তা সত্বেও আমার এই নতুন স্মার্টফোন বায়িং গাইড সিরিজটি আশা করি আপনাদের সঠিক স্মার্টফোনটি খুঁজে পেতে সাহায্য করবে।

কিছু কথাঃ

  • আমি এই বায়িং গাইডটিতে একটি নির্দিষ্ট প্রাইস রেঞ্জে একাদিক অপশন রেখেছি। কিছু ক্ষেত্রে একটি অপরটি থেকে ভালো আবার কিছু ক্ষেত্রে একেকটিতে একেকটি ইউনিক ফিচার আছে। তাই এসব বিবেচনা করে আপনার চাহিদা এবং পছন্দ অনুযায়ী ফোনটিই সিলেক্ট করবেন।
  • এখানে স্মার্টফোনগুলো ভাল-খারাপের ক্রমানুযায়ী না দিয়ে বরং বর্তমান বাজারের দাম অনুযায়ী কম দাম থেকে বেশি দাম এই হিসেবে সাজানো হয়েছে।
  • আপনারা জানেন যে কিছু কিছু ব্র্যান্ড এর স্মার্টফোন অফিশিয়ালি শোরুমে যে দামে পাওয়া যায় ঢাকায় বিভিন্ন থার্ড পার্টি রিসেলারের কাছে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে পাওয়া যায়। তাই দাম উল্লেখের ক্ষেত্রে এখানে বাজারের অফিশিয়াল-আনঅফিসিয়াল তুলনা করে সর্বনিম্ন দামটিই উল্লেখ করা হয়েছে।
  • এই লিস্টে শুধু বর্তমানে বাংলাদেশে প্রচলিত ফোনগুলো বিবেচনা করা হয়েছে।

দশ হাজার টাকার কম বাজেটে যে ফোনগুলো আপনার পছন্দের তালিকায় রাখতে পারেনঃ

 

শাওমি রেডমি গো । ৬৯০০ টাকা

যেখানে পাবেন: অফিশিয়াল শোরুম/আনফিশিয়াল শপ/ই-কমার্স সাইট

শাওমির সবচেয়ে সুলভ ফোন হচ্ছে এটা। এন্ড্রয়েড অরিও গো অপারেটিং সিস্টেমচালিত এই ফোনটিতে থাকছে ৮ জিবি স্টোরেজ আর ১ জিবি র‍্যাম। প্রসেসর হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৪২৫ চিপসেট।


৫ ইঞ্চি এইচডি রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে আছে ফোনটিতে। পিছনের দিকে ৮ মেগাপিক্সেল ও সামনে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরাযুক্ত ফোনটিতে প্রয়োজনীয় বেসিক সব ফিচার আছে। ডুয়াল সিমের সাথে ১২৮ জিবি পর্যন্ত মেমোরি কার্ডও সাপোর্ট করে এতে। এর ব্যাটারি ৩০০০ মিলিএম্পিয়ার ক্ষমতার।

 

নকিয়া ১ প্লাস । ৬৯৯৯ টাকা

যেখানে পাবেন: অফিশিয়াল শোরুম/আনফিশিয়াল শপ/ই-কমার্স সাইট


নকিয়া ১ প্লাস ও নকিয়ার সবচেয়ে সুলভ স্মার্টফোন। এটি এন্ড্রয়েড পাই ভিত্তিক গো এডিশন চালিত ফোন। মিডিয়াটেক এর কোয়াড কোর প্রসেসরের সাথে এতে রয়েছে ১ জিবি র‍্যাম ও ৮ জিবি স্টোরেজ।

এতে ডুয়াল সিমের জন্য হাইব্রিড স্লট ব্যবহার করাতে ডুয়াল সিম ব্যবহার করা অবস্থায় মেমোরি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন না। এর ডিসপ্লেটি ৫.৪৫ ইঞ্চির হলেও রেজ্যুলেশন খুবই কম।

পিছনে ৮ মেগাপিক্সেল ও সামনে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা আছে ফোনটিতে। তবে এর ব্যাটারি মাত্র ২৫০০ মিলিএম্প এর।

 

নকিয়া ২ । ৭৫০০ টাকা

যেখানে পাবেন: অফিশিয়াল শোরুম/আনফিশিয়াল শপ/ই-কমার্স সাইট


নকিয়ার এই ফোনটি অপেক্ষাকৃত পুরনো। রিলিজের সময় দাম বেশি থাকলেও সময়ের সাথে এটার দাম এখন অনেক কমে গিয়েছে। ফোনটি খুবই সাধারণ হলেও এর ব্যাটারি ব্যাকআপ চমৎকার। এতে আছে ৪১০০ মিলিএম্প এর ব্যাটারি।

স্ন্যাপড্রাগন ২১২ প্রসেসর, ১ জিবি র‍্যাম ও ৮ জিবি স্টোরেজ আছে ফোনটিতে। এতে স্ট্যান্ডার্ড এন্ড্রয়েড অরিও অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহৃত হয়েছে। ৫ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে, ডুয়াল সিম এবং সেই সাথে ডেডিকেটেড মেমোরি কার্ড স্লট আছে এতে। ফোনটির পিছনের ও সামনের ক্যামেরা যথাক্রমে ৮ মেগাপিক্সেল ও ৫ মেগাপিক্সেল।

 

উমিডিজি এ৩ । ৭৯০০ টাকা

যেখানে পাবেন: আনফিশিয়াল শপ/ই-কমার্স সাইট


চাইনিজ এই স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটি অল্প সময়ে বেশ নাম কামিয়েছে। বাংলাদেশে তারা অফিশিয়ালি আসলেও মূলত ই-কমার্স সাইট এর মাধ্যমেই তারা ফোন বিক্রি করে। তাদের এই ফোনটি এত কম বাজেটেও প্রিমিয়াম লুকিং গ্লাস মেটাল ডিজাইন আর চমৎকার স্পেসিফিকেশন দিয়েছে। ১.৫ গিগাহার্টজ প্রসেসর, ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে, ২ জিবি র‍্যাম আর সেই সাথে আছে ১৬ জিবি স্টোরেজ।

ডুয়াল সিমের সাথে ডেডিকেটেড মাইক্রো এসডি স্লট দিয়ে স্টোরেজ বাড়িয়েও নিতে পারবেন। এতে থাকছে ১২ মেগাপিক্সেল ও ৫ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা আর ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। ৩৩০০ মিলিএম্প ব্যাটারি আর এন্ড্রয়েড অরিও চালিত ফোনটি এই বাজেটে একটি স্বয়ংসম্পূর্ন ফোন বলা যায়।

 

ইনফিনিক্স স্মার্ট ২ প্রো । ৭৯৯০ টাকা

যেখানে পাবেন: ই-কমার্স সাইট


ইনফিনিক্স বাংলাদেশে মূলত ই-কমার্স সাইটের মাধ্যমে ফোন বিক্রি করে। বছরের প্রায় সব সময়ই তাদের ফোনগুলোতে ডিস্কাউন্ট থাকে। চাইনিজ এই ব্র্যান্ডটি বাংলাদেশ ছাড়াও এশিয়া ও আফ্রিকার দেশগুলোতে বেশ জনপ্রিয়। তারা তাদের ফোনগুলোতে এক্সওএস নামক কাস্টম এন্ড্রয়েড রম ব্যবহার করে। তাদের স্মার্ট ২ প্রো ফোনটি বাংলাদেশে ব্যপক জনপ্রিয়তা পায়।

কোয়াড কোর প্রসেসর, ২ জিবি র‍্যাম, ১৬ জিবি স্টোরেজ আছে ফোনটিতে। মাইক্রো এসডি কার্ড ও ব্যবহার করা যাবে। ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে আর সেই সাথে পিছনে ও সামনে আছে ১৩ ও ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এতে ৩০০০ মিলিএম্প এর ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়েছে।

 

ওয়ালটন প্রিমো এইচ৮ । ৭৯৯৯ টাকা

যেখানে পাবেন: অফিশিয়াল শোরুম/আনফিশিয়াল শপ/ই-কমার্স সাইট


বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড বাংলাদেশে কম দামে ভালো ফোন নিয়ে আসাতে আজকাল ওয়ালটন কিংবা সিম্ফনি এর চেয়ে ওইগুলো কিনতেই বেশি পছন্দ করে। কারণ আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডগুলোর কমিউনিটি সাপোর্ট এবং সফটওয়্যার সাপোর্ট অপেক্ষাকৃত ভাল হয়। তবে এই বাজেটে ওয়ালটন এর এই ফোনটি বিবেচনা করে দেখতে পারেন।

এতে আছে ৫.৪৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে, কোয়াড কোর প্রসেসর, ৩ জিবি র‍্যাম, ১৬ জিবি স্টোরেজ যা মেমোরি কার্ড ব্যবহার করে বাড়ানো যাবে। এর সামনে ও পেছনে উভয়দিকে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা এবং ৩২০০ মিলিএম্প এর ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়েছে। এতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ও থাকছে।

 

শাওমি রেডমি ৬এ । ৮৫০০ টাকা

যেখানে পাবেন: আনফিশিয়াল শপ


অফিশিয়ালি শাওমির এই ফোনটি অপেক্ষাকৃত বেশি দাম হলেও বিভিন্ন থার্ড পার্টি দোকানে এই বাজেটেই পেয়ে যাবেন ফোনটি। সাড়ে পাঁচ ইঞ্চির ডিসপ্লে, ২ জিবি র‍্যাম ও ১৬ জিবি রমের ফোনটিতে আছে মিডিয়াটেক হেলিও এ২২ চিপসেট।

এর পিছনে ও সামনে আছে যথাক্রমে ১৩ ও ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। মিইউআই স্কিনযুক্ত এন্ড্রয়েড অরিও চালিত ফোনটির ব্যাটারি ৩০০০ মিলিএম্প। প্রয়োজনীয় সব ফিচার মিলিয়ে এটি হতে পারে একটি চমৎকার পছন্দ।

[★★] আপনিও একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ! এখানে ক্লিক করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন।

ফেসবুকে যুক্ত হোন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য পেতে ইমেইলে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.