বাজারের সেরা ক্যামেরা নিয়ে এলো মিডরেঞ্জ পিক্সেল 3a এবং 3a XL

বহু জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গুগল গতকাল তাদের বাৎসরিক ডেভেলপার কনফারেন্স “গুগল আই/ও ” তে তাদের নতুন ফোনযুগল, গুগল পিক্সেল ৩এ এবং গুগল পিক্সেল ৩এ এক্সএল লঞ্চ করলো। না, ফোনে নতুনত্ব কিছুই থাকছে না। বরং গত বছরের ফ্ল্যাগশিপ পিক্সেল ৩ সিরিজের কাটছাঁট করা ভার্সন বলতে পারেন ফোনদুটিকে। ডিসপ্লে সাইজ আর ব্যাটারি ব্যতিত পিক্সেল ৩এ এবং ৩এ এক্সএল এর মাঝে আর কোন পার্থক্য নেই।

গুগল বরাবরই তাদের অপটিমাইজড সফটওয়্যার এক্সপেরিয়েন্স এর জন্য বিখ্যাত। আর সেই সাথে বাজারের সেরা ক্যামেরার তকমা সবসময় গুগল এর ফ্ল্যাগশিপগুলোর মাথায়ই থাকে। তবে তাদের প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশিপগুলো দামের দিক থেকেও “প্রিমিয়াম”ই হয়। আর এটাই ছিল মধ্যবিত্ত ক্রেতাদের অভিযোগ। আর এটার উপর ভিত্তি করেই তাদের নতুন পিক্সেল ৩এ সিরিজকে এমনভাবে ডেভেলপ করা হয়েছে যেন মূল ফ্ল্যাগশিপ এর অর্ধেক দামে ক্রেতারা একইরকম ক্যামেরা এবং সফটওয়ার এক্সপেরিয়েন্স পায়।

আর এটা করতে গিয়ে চিপসেট, বিল্ড কুয়ালিটি আর কিছু ফিচারের বেলায় একটু ছাড় দিতেই হয়েছে। তাই স্পেসিফিকেশন কিংবা ডিজাইন বিচারে মিডরেঞ্জ এর কাতারে পড়লেও সাধারণ গ্রাহকদের চাহিদা ভালোভাবেই পূরণ করতে পারবে বলে আশা করা যায়। সেই সাথে বিভিন্ন ক্যামেরা টেস্ট এ দেখা গিয়েছে অরিজিনাল পিক্সেল ৩ সিরিজের সাথে এটার ক্যামেরা কুয়ালিটির কোন তফাৎ নেই।

বরং এর ক্যামেরা বাজারের অন্যান্য ব্র্যান্ড এর চেয়ে দ্বিগুণ দামের ফোনগুলোর ক্যামেরার চেয়ে ভালো। তাই যারা তুলনামূলক কম দামে বাজারের সেরা ক্যামেরাটি নিজের করতে চান তাদের ক্ষেত্রে এটা হতে পারে একমাত্র পছন্দ।

র্টফোনের গেমিং দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। পাবজি মোবাইল কিংবা ফোর্টনাইট এর মতো গেমগুলো মোবাইল গেমিং ইন্ডাস্ট্রিকে এক নতুন মাত্রা দিয়েছে। আর মোবাইল গেমিং এর এই জনপ্রিয়তাকে পুঁজি করে বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানি একের পর এক গেমিং ফোন নিয়ে আসছে।

চাইনিজ ব্র্যান্ড নুবিয়া এবার এনেছে রেড ম্যাজিক ৩ নামক এক গেমিং ফোন যাতে থাকছে একটি কুলিং ফ্যান। এটিই বিশ্বের প্রথম স্মার্টফোন যাতে কুলিং ফ্যান সংযুক্ত আছে।

সাধারণত ল্যাপটপ কিংবা ডেস্কটপে প্রসেসর ও গ্রাফিক্স কার্ডকে ঠাণ্ডা রাখতে কুলিং ফ্যান বসানো থাকে। এর কুলিং ফ্যানটি মিনিটে ১৪,০০০ বার ঘুরতে পারে এবং এর সাথে লিকুইড কুলিং টেকনোলজি ও কাজ করবে।

পিক্সেল ৩এ এর স্পেসিফিকেশন

  • স্ক্রিনঃ ৫.৬ ইঞ্চি (ফুল এইচডি প্লাস, জি-ওলেড ডিসপ্লে), ১৮.৫:৯ রেশিও, ক্লাসিক বেজেল ও চিন ডিজাইন। পিছনের দিকে পলিকার্বনেট।
  • প্রসেসরঃ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৭০
  • র‍্যামঃ ৪ জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪ জিবি।
  • ক্যামেরাঃ পেছনে ১২.২ মেগাপিক্সেল ডুয়াল পিক্সেল টেকনোলজি সিঙ্গেল ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশ। সামনে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। ৪কে ভিডিও রেকর্ড এবং ওআইএস।
  • ব্যাটারিঃ ৩০০০ এমএএইচ, ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জার।
  • অন্যান্যঃ ফ্রন্ট ফেসিং স্টেরিও স্পিকার, ৩.৫ মিমি পোর্ট, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ইত্যাদি।
  • দাম শুরুঃ ৩৯৯ মার্কিন ডলার থেকে।

পিক্সেল ৩এ এক্সএল এর স্পেসিফিকেশন

  • স্ক্রিনঃ ৬.০ ইঞ্চি (ফুল এইচডি প্লাস, জি-ওলেড ডিসপ্লে), ১৮.৫:৯ রেশিও, ক্লাসিক বেজেল ও চিন ডিজাইন। পিছনের দিকে পলিকার্বনেট।
  • প্রসেসরঃ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৭০
  • র‍্যামঃ ৪ জিবি
  • স্টোরেজঃ ৬৪ জিবি।
  • ক্যামেরাঃ পেছনে ১২.২ মেগাপিক্সেল ডুয়াল পিক্সেল টেকনোলজি সিঙ্গেল ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশ। সামনে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। ৪কে ভিডিও রেকর্ড এবং ওআইএস।
  • ব্যাটারিঃ ৩৭০০ এমএএইচ, ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জার।
  • অন্যান্যঃ ফ্রন্ট ফেসিং স্টেরিও স্পিকার, ৩.৫ মিমি পোর্ট, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ইত্যাদি।
  • দাম শুরুঃ ৪৭৯ মার্কিন ডলার থেকে।

ফোনদুটি আপনার কেমন লেগেছে? এত বেশি দামে শুধু ভালো ক্যামেরার জন্য আপনি কি অন্যান্য ব্র্যান্ড এর ভালো স্পেসিফিকেশন এর ফোন বাদ দিয়ে এদেরকে কিনবেন?

[★★] আপনিও একটি টেকবাজ একাউন্ট খুলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে পোস্ট করুন! হয়ে উঠুন একজন দুর্দান্ত টেকবাজ! এখানে ক্লিক করে নতুন একাউন্ট তৈরি করুন।

ফেসবুকে যুক্ত হোন!

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য পেতে ইমেইলে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.